বাংলাদেশ ব্রেকিং নিউজ

দুই যুবতীকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে দিল সীমান্তরক্ষা বাহিনী

এন্টি হিউম্যান ট্রাফিকিং ইউনিটের ইন্সপেক্টর আদিত্য নারায়ণের কাছে গোপন খবর ছিল, বসিরহাট মহকুমার স্বরূপনগর থানার ভারত-বাংলাদেশ হাকিমপুর সীমান্তে বাংলাদেশ থেকে এদেশে দুই যুবতী সীমান্ত পেরিয়ে ঢুকতে চলেছে। সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানার ওই দুই যুবতীকে মোটা টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বাংলাদেশি এক দালাল ভারতীয় সীমান্তে ঢুকেয় তামিলনাড়ুতে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। এরপর শুক্রবার ওই দুই মহিলা বাংলাদেশের পরিচয় পত্র নিয়ে সীমান্তে প্রবেশ করলে ১১২ নম্বর ব্যাটালিয়নের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জওয়ানদের সন্দেহ হওয়ায় হাতেনাতে দুই যুবতীকে পাকড়াও করে জওয়ানরা।

একজন ২১ বছরের সোনিয়া খাতুন। অন্যজন ৩৩ বছরের বন্যা খাতুন। এরপর তাদেরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে সীমান্তরক্ষী বাহিনী জানতে পারে, বাংলাদেশের পরিচয় পত্র থাকলেও, এদেশে ঢোকার জন্য বৈধ নথি তারা দেখাতে পারিনি। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, বাংলাদেশী এক দালাল মারফৎ ভারতে ঢুকে তাদের তামিলনাড়ুতে নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্য ছিল।

খবর জানতে পেরে ১১২ নম্বর ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার চন্দ্র শেখরের উদ্যোগে সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানার কাকডাঙ্গা বাংলাদেশ সীমান্তে বাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। অতঃপর শুক্রবার রাতে দুই দেশের সীমান্তের আধিকারিকদের মধ্যে একটি ফ্ল্যাগ মিটিং হয়। তারপর দুই যুবতীকে বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষা বাহিনীর হাতে তুলে দেন ভারতীয় সীমান্তরক্ষা বাহিনী।

জানা গেছে, তদন্তকারীরা ওই দুই মহিলার কাছ থেকে তাদের পরিচয় সহ দালালের সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। কিন্তু এই ঘটনার পর বাংলাদেশের দালাল পলাতক। তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষা বাহিনী ও কলারোয়া থানার পুলিশ।