খেলাধুলা ব্রেকিং নিউজ

নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে নতুন ইতিহাস টিম ইন্ডিয়ার!

চিন্নাস্বামীতে নেদারল্যান্ডসকে ১৬০ রানে হারালেন রোহিত ব্রিগেড। শুরুতে ব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে ৪১০ রান তোলে ভারত। সৌজন্যে শ্রেয়স আইয়ার ও লোকেশ রাহুলের জোড়া শতরান। জবাব ব্যাট করতে নেমে ৪৭.৫ ওভারে ২৫০ রানে শেষ হয়ে গেল ডাচ শিবিরের ইনিংস। বিশ্বকাপে নয়ে নয় করে সেমিফাইনালে রোহিতরা।

দ্বিতীয় ওভারেই ডাচ ওপেনার বারেসিকে ফিরে যেতে হয়। দ্বিতীয় উইকেটে ৬১ রানের জুটি গড়েন ম্যাক্স ও’দাউদ ও অ্যাকারমেন। তাঁদের জুটি ভাঙেন কুলদীপ। ব্যক্তিগত ৩৫ রানে ফেরান অ্যাকারমেনকে। নেদারল্যান্ডস অধিনায়ককে ফিরিয়ে চমক দেন বিরাট কোহলি। আটত্রিশতম ওভারে এঙ্গেলব্রেখটকে ফেরান সিরাজ। এরপর কিছুটা লড়াই করেছিলেন নিদামানারু। ৩৯ বলে ৫৪ রান করেন তিনি। ১ টি চার ও ৬ টি ছয় আসে তাঁর ব্যাট থেকে। তবে ভারতের পাহাড় প্রমাণ রান তাড়া করার জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। আটচল্লিশতম ওভারে নিজেই বল করতে আসেন রোহিত। ততক্ষণে ৯ উইকেট পড়ে গিয়েছে নেদারল্যান্ডসের।

শুরুতে টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। ইতিমধ্যে প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপের শেষ চারে পৌঁছে গিয়েছে দল। ১১.৫ ওভারে ১০০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে যায় ভারতের। ৩২ বলে ৫১ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন গিল। ৩ টি চার ও ৪ টি ছয় এল তাঁর ব্যাট থেকে। আক্রমণাত্মক খেলায় পিছিয়ে ছিলেন না ভারত অধিনায়কও। ৫৪ বলে ৬১ রান করলেন রোহিত। মারলেন ৮ টি চার ও ২ টি ছয়। রোহিত ফিরতে দলের স্কোরবোর্ড এগিয়ে নিয়ে যান বিরাট কোহলি ও শ্রেয়স আইয়ার। বিরাট ভক্তরা এদিন শতরানের অর্ধশত রান দেখার প্রতীক্ষায় ছিল। তবে অর্ধশত রান করেই তাঁকে সন্তুষ্ট থাকতে হল। দলগত ২০০ রানে বিরাট ফিরতে দলের হাল ধরলেন শ্রেয়স আইয়ার ও লোকেশ রাহুল। চতুর্থ উইকেটে ২০৮ রানের জুটি খেলেন দুজনে। ৬৪ বলে ১০২ রানের দাপুটে ইনিংস খেলেন রাহুল। ১১ টি চার ও ৪ টি ছয়ে সাজানো ছিল তাঁর ইনিংস। শেষ ওভারে রাহুল ফিরলেও ৯৪ বলে ১২৮ রানে অপরাজিত থাকেন আইয়ার। ১১ টি চার ও ৪ টি ছয় এল তাঁর ব্যাট থেকে। ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হয়েছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক। তবে বাড়তি পাওনা বল হাতে বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মার উইকেট। প্রসঙ্গত, এই প্রথম কোনও ভারতীয় দল ওয়ান ডে বিশ্বকাপে টানা নয় ম্যাচ জিতে ইতিহাস গড়ল।